কারেন্ট শক বা বৈদ্যুতিক শক কি ? ইলেকট্রিক শক এর পর করণীয় এবং প্রাথমিক চিকিৎসা ?

কারেন্ট শক বাবৈদ্যুতিক শক কি ?

মানুষের দেহের মধ্যে বিদুৎ প্রাবাহের সময় মানুষের যে শারিীরিক অনুভূতি বা প্রতিক্রয় তৈরী হয়, তাকেই কারেন্ট শক বা বৈদ্যুতিক শক বলা হয়।

আমাদের বাসায় ইলেকট্রনিক সামগ্রী প্রতিদিনে বেড়েই চলেছে। অসাবধান হয়ে বিদ্যুতের প্লাকে কোনো প্লাক লাগাতে গিয়ে কিংবা ঘরের ছোটখাট বিদ্যুতের কাজ করার সময় যে কেউই তড়িৎ শক বা ইলেকট্রিকেল শক খেতে পারেন। সহসা এ ঘটনার ঘটার কারণে শরীরে ক্ষতিকর প্রভাব পড়তে পারে।

ইলেকট্রিক শক বা বৈদ্যুতিক শক কেন হয় ?

মানুষের শরীর একটি ভাল বিদুৎ পরিবাহী । কারণ মানুষের শরীরে বিভিন্ন  ধাতব আয়ন রয়েছে যেমন সোডিয়াম, পটাশিয়াম, ক্লোরাইড আয়ন অন্যতম। এছাড়াও মানুষের শরীরে রয়েছে এক তৃতীয়াংশ পানি সেই সাথে ধাতব আয়ন সমূহের কারনে ইলেকট্রিক শক বা বৈদ্যুতিক শক হয়। মানুষের শরীর ভেজা থাকলে ইলেকট্রিক শক বা বৈদ্যুতিক শক ঝুঁকি আরও বেড়ে যায় এমনকি জীবনহানি ও ঘটতে পারে।

আরও জানুনঃ ইউরিক অ্যাসিড বেশী থাকলে আমে খাওয়ার অপকারিতা কি ? আম খেলে কি ইউরিক এসিড বেশি হয় ?

ইলেকট্রিক শক এর পর করণীয় এবং শক এর প্রাথমিক চিকিৎসা বা ইলেকট্রিক শক ট্রিটমেন্ট ?


এমনকি বিদ্যুৎ শক খাওয়ার পর ঠিক আয়োজন না নিলে আক্রান্তের প্রাণ যাওয়ার ঝুঁকিও থাকে। তাই কারন্টে শক খাওয়ার পর প্রাইমারি সেবা হিসেবে কী করা জরুরি, তা সবারই জেনে রাখা উচিত।
তড়িৎ শক খাওয়ার বিষয়টিকে অনেকেই হেলাফেলা করে, কিন্তু এটা কিন্তু সবসময়ই প্রাণঘাতী সমস্যা। এজন্য বিদ্যুৎ নিয়ে হেলাফেলা করা যাবে না।
বিদ্যুতের শক থেকে বার্ন, হার্টের প্রবলেম ও নার্ভের রোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি থাকে। এজন্য এ নিয়ে সাবধান থাকা জরুরি। না হলে রোগীর জীবন বাঁচানো মৃশকিল থেকে পারে।

আরও জানুনঃ কোলেস্টেরল কমাতে ডিম ? রক্তে ক্ষতিকর কোলেস্টেরল প্রভাব কমায় ডিম ?

বিদ্যুতের শকে পুড়ে গেলে কী করণীয়?


বিদ্যুতের শকে বা কারেন্টের শকে অনেকের দেহের কিছুটা অংশ পুড়ে যায়।

  • এই পরিস্থিতির শিকার হলে প্রথমেই ওই ঠাঁই প্রচণ্ড অনেক ভালো করে ধুয়ে নিতে হবে।
  • এক্ষেত্রে স্বচ্ছ জীবাণুমুক্ত জল দিয়ে স্থানটি পরিষ্কার করুন।
  • তারপর সেখানে অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল কোনো মলম লাগাতে হবে।
  • অতঃপর চিকিৎসকের কাছে যত দ্রুত সম্ভব যেতে হবে।

বিশ্রাম নিলে শরীরের ঝিমঝিম কমবে কি ?


কারেন্টের শক খাওয়ার পর অনেকেরই গা, হাত-পা ঝিমঝিম করে। এই পরিস্থিতিতে প্রচুর বিশ্রাম নিতে হবে ও অনেক জল পান করুন। কিন্তু বিশ্রাম নেওয়ার পরও শারীরিক অস্বস্তি না গেলে দ্রুত চিকিৎসকের উপদেশ নিন।

আরও জানুনঃ অ্যামনিওটিক ফ্লুইড কি ? অ্যামনিওটিক ফ্লুইড এর কাজ কি ? গর্ভফুল কি ? গর্ভবতী কত দিন পর সন্তান ভূমিষ্ঠ হয় ?


বিদ্যুতের শকে বা কারেন্টের শকে হার্টের সমস্যা হলে ফাস্ট অ্যারেঞ্জমেন্ট নিন ?


বিদ্যুৎ শকের কারণে হার্ট ক্ষতিগ্রস্থ থেকে পারে। এক্ষেত্রে ইরেগুলার হার্টবিটের প্রবলেম লক্ষ্য দেওয়ার জন্য পারে। এমনকি রোগী অচেতন পর্যন্ত হয়ে যেতে পারেন আবার হৃদস্পন্দনও থেমে যেতে পারে। এমন হাবভাব দেখলে দ্রুত চিকিৎসকের উপদেশ নিতে হবে।
আর ইলেকট্রিক শক খেয়ে রোগীর হৃদস্পন্দন অফ হয়ে গেলে তাকে ফাস্ট সিপিআর দিতে হবে। এক্ষেত্রে বুকের মাঝ বরাবর চাপ দেওয়ার পর আক্রান্তের মুখে মুখ লাগিয়ে ফুঁ দিন। এভাবেই তার প্রাণ বাঁচতে পারে।

বিদ্যুতের শকে বা কারেন্টের শকে নার্ভের ক্ষতি হতে পারে ?


কোনো কারণে কেউ যদি নিয়মিত বিদ্যুৎ শক খান, তাহলে স্নায়ুর ক্ষতি হতে পারে। বিশেষ করে ইলেকট্রিকের কাজের সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিরা এ ধরনের সমস্যায় পড়েন।
কারণ তারা মাঝেমধ্যেই ইলেকট্রিক শক খান। আর নার্ভের বিপদের কোনো চিকিৎসা নেই। এক্ষেত্রে সচেতনতাই থেকে পারে শ্রেষ্ঠ চিকিৎসা।

আরও জানুনঃ গর্ভবতী মায়ের যত্ন কি কি এবং গর্ভবতী মায়ের প্রথম তিন মাসের সতর্কতা ? গর্ভবতী মায়ের কি কি চেকআপ করা দরকার ?

বিদ্যুতের শকে বা কারেন্টের শকে খেলে কী করবেন, আর কী করা যাবে না?

  • কেউ বিদ্যুৎ শক খেলে দ্রুত সেখানকার বিদ্যুতের লাইন অফ করুন।
  • বিদ্যুতের লাইন বন্ধ  না তাকে  স্পর্শ করা যাবেনা।
  • যদি এতে কাজ না হয় তাহলে শুকনো খবরের কাগজ, উলের কাপড়, শুকনো কাঠের টুকরো পক্ষান্তরে রাবার দিয়ে ইলেকট্রিক শক আহার করা ব্যক্তিকে থেকে ধকল দিয়ে বিদ্যুতের সোর্স থেকে আলাদা করতে হবে।
  • তারপরও  যদি সম্ভব না হলে  তাহলে বিদ্যুৎ অফিসে জানাতে হবে।
  • তারপর আক্রান্তের শারীরিক সিচুয়েশন দেখুন।
  • আক্রান্ত ব্যাক্তি সুস্থ থাকলে চোখে ও মুখে পানি দিয়ে বিশ্রাম নিতে হবে।
  •  আক্রান্ত ব্যাক্তি সাংঘাতিক অসুস্থ হয়ে পড়েন, তাহলে ফাস্ট ডাক্তারখানায় নেওয়ার ব্যবস্থা করুন।

গুগল নিউজ হতে আপডেট ” নিউজ হতে আইবাস++ ও সরকারি নিউজের আপডেট সংগ্রহ করে নিতে পারেন।

কত ভোল্টেজ মানুষ মারা যায়, মানুষের হৃৎপিণ্ডের ভিতর দিয়ে কত পরিমাণ বিদ্যুৎ প্রবাহিত হলে মানুষ মারা যায় ?

কত ভোল্টেজ মানুষ মারা যায়, মানুষের হৃৎপিণ্ডের ভিতর দিয়ে কত পরিমাণ বিদ্যুৎ প্রবাহিত হলে মানুষ মারা যায়: মানুষের শরীরে বিদ্যু প্রবাহিত হলে তা রোধ করার জন্য তাপ উপন্ন হয় । ফলে দেহের ভিতরে বা বাহিরে পুড়ে ফেলতে পারে। মানুষের শরীরে চার অ্যাম্পিয়ারের বেশী বিদ্যু প্রবাহের ফলে হৃৎপিণ্ড বন্ধ হয়ে মারা যেতে পারে।

আরও জানুনঃ গর্ভবতী মায়ের খাবার তালিকা এবং গর্ভবতী মায়ের খাবার ?

সুতরাং বৈদ্যুতিক জিনিসপত্র ব্যবহারে সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে এবং কোন ক্রটি দেখা দিলে তা দক্ষ টেকনিশিয়ান দিয়ে মেরামত করা উচিত।

রিলেটেড ট্যাগঃকারেন্ট শক খেলে কি করবেন?, ইলেকট্রিক শক এর পর করণীয়, শক এর প্রাথমিক চিকিৎসা, ইলেকট্রিক শক ট্রিটমেন্ট, কত ভোল্টেজ মানুষ মারা যায়, মানুষের হৃৎপিণ্ডের ভিতর দিয়ে কত পরিমাণ বিদ্যুৎ প্রবাহিত হলে মানুষ মারা যায়? বৈদ্যুতিক শক এর প্রাথমিক চিকিৎসা?. ইলেকট্রিক শক ট্রিটমেন্ট, ইলেকট্রিক শক কেন হয়?

Reply

error: Content is protected !!